খোঁজ করতে চান ?

উন্নত বিশ্বের কাছে বন্দী জলবায়ু পরিবর্তন।

জলবায়ু পরিবর্তন বা climate change বিষয়টি এখনও উন্নত বিশ্বের কাছে বন্দি, ঠিক যেভাবে পুঁজিবাদের কাছে পৃথিবী বন্দি। ক্লাইমেট চেঞ্জ এর কারনে হিসেবে CO2 যে দ্বায়ী তার পরিমাপের ভিত্তি হচ্ছে প্রাগৈতিহাসিক জলবায়ু পরিবর্তনের তথ্য বা ডেটা। প্রাগৈতিহাসিক জলবায়ু পরিবর্তনের যে মডেল তৈরি করা হয়েছে তার বেশিভাগ ডেটা এসেছে ইউরোপ আর উত্তর আমেরিকা থেকে। কিন্তু মজার বিষয় হচ্ছে যে ট্রাপিকেল এলাকা ক্লাইমেট চেঞ্জ এর সবচেয়ে বড় ভিকটিম তাদের ডেটা নাই বললেই চলে। বিষয়টি এমন যে আমি যদি ঢাকার পরিস্থিতি দিয়ে সারা বাংলাদেশের পরিস্থিতি বিবেচনা করি তাহলে বিষয়টি যেমন দাঁড়াবে তেমন। এই মডেল গুলতে বলা হচ্ছে রিজিওনাল বিষয় কে এড়িয়ে গ্লোবাল বিষয় কে আনা হয়েছে। যদি আমেরিকা আর ইউরোপের রিজিওনাল ডেটা দিয়ে সারা পৃথিবীর ডেটা কে অবজ্ঞা করে সেটিকে গ্লোবাল হিসেবে চাপিয়ে দেওয়া হয় তাহলে বৈজ্ঞানিক সন্ত্রাসের পর্যায়ে পড়ে। প্রত্যেকটি মডেলে ত্রিশ বছরের গড় মান কে বিবেচনায় নিয়ে সেটিকে আলাদা আলাদা মডেল তৈরি করেও সব মডেলের সমান মান আসেনি আবার এই মডেল গুলোর standard deviation এর কারনে যদি দুটি ভ্যালু বাদ পড়ে যায় তাহলে প্রায় ৬০ বছর এর তথ্য বাদ পরে অর্থাৎ গত ৬০ বা ৭০ বছরের সমান সময়ের ডেটা বিবেচনায় আসে না । আবার প্রাগৈতিহাসিক জলবায়ু পরিবর্তনের মডেলে খুব ভালোভাবে মিলনাকোভিচ সাইকেল কে ফলো করা হয়, আবার যখন এটি আধুনিক জলবায়ু পরিবর্তনের কথা বলা হয় তখন এটি কে অবজ্ঞা করা হয় ব্যাপারটি এমন যে এটি আমার যখন প্রয়োজন তখন আমি সেই থিওরি বা হাইপোথিসিস ব্যাবহার করলাম আর যখন সেটি আমার মতের বিরুদ্ধে গেল তখন আমি তাকে এড়িয়ে চললাম । বিজ্ঞান বিশ্বাস এর বিষয় নয় এটি তথ্য আর যুক্তির ব্যাপার, ক্লাইমেট চেঞ্জ কে মানতেই হবে বা একে ভুয়া বলেও উড়িয়ে দেওয়া যায় না। যদি বলা হয় CO2 এর কারনে যদি সমুদ্রের পৃষ্ঠের উচ্চতা বাড়ে বার সেই সমুদ্র পৃষ্টের বৃদ্ধির কারনে CO2 কমে যাবে । সমুদ্র পৃষ্টের উচ্চতা বৃদ্ধি পেলে সমদ্রের আয়তন বাড়বে ফলে বেশি পরিমান প্ল্যাঙ্কটন হবে, আবার সেই প্ল্যাঙ্কটন CO2 শোষণ করে নিবে ফলে তাপমাত্রা হ্রাস হবে আবার সমুদ্রের পানির পৃষ্টের উচ্চতা কমে যাবে। বিজ্ঞান কে বিজ্ঞানের মত চলতে দেওয়া উচিত এর মধ্যে রাজনীতি আর রাজনীতির মধ্যে পলিটিক্স ঢুকে গেলে ভবিষ্যৎ অন্ধকার।